শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৯:৪২ অপরাহ্ন

দাউদকান্দিতে ড. জহির খান বৃত্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

আলমগীর হোসেন
  • Update Time : শুক্রবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২২
  • ৯৬ Time View

শুক্রবার দাউদকান্দি উপজেলার বরকোটা স্কুল এ্যান্ড কলেজে বেগম জিলহজ্জ রাজ্জাক মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশন পরিচালনা কমিটির আয়োজনে দাউদকান্দি উপজেলার চতুর্থ ও সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বৃত্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।
পরীক্ষা পরিদর্শন করেন, কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( সার্বিক) মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন, দাউদকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মহিনুল হাসান, ফাউন্ডেশনের সভাপতি ড. জহিরুল ইসলাম খান। বেগম জিলহজ্জ রাজ্জাক মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ড. মো. জহিরুল ইসলাম খান বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন শহরে বসবাসরত, তিনি বাংলদেশের বংশোদ্ভূত। তিনি দুই দেশেরই নাগরিক । পিএইচডি করেছেন ফার্মেসির উপর।সারা জীবন তিনি ওষুধ নিয়ে গবেষণা করেছে। তার অসংখ্য লেখা ইন্টারন্যাশনাল জানালে প্রকাশিত হয়েছে। তিনি বলেন, জনসেবার লক্ষ্যে তিনি তাঁর মা বাবার স্মৃতি অম্লাণ করতে রাখতে নিজ উদ্যোগে রেজিস্ট্রেশন প্রাপ্ত এ ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেছেন। শিক্ষার্থীদের বৃত্তি দেওয়া ছাড়াও বাংলাদেশ এবং অস্ট্রেলিয়াতে এতিমদের আশ্রয়ের জন্য এতিমখানা নির্মাণ, ছিন্নমূল শিশুদের পুনর্বাসনের জন্য আশ্রয়স্থল তৈরী প্রক্রিয়াধীন ।
বরকোটা স্কুল এন্ড কলেজের অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এস এম জাকির হোসেন ভূঁইয়া বলেন, বেগম জিলহজ্জ রাজ্জাক ফাউন্ডেশন কর্তৃক আয়োজিত এই মেধা বৃত্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী ছাত্র-ছাত্রীদেরকে আমরা বরকোটা স্কুল এন্ড কলেজের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।গরীব মেধাবী শিক্ষার্থীরা যাতে এগিয়ে যেতে পারে তাদেরকে আর্থিকভাবে মানসিকভাবে সহযোগিতা করার মানসিকতা থেকে এ উদ্যোগ নিয়েছেন এবং ফাউন্ডেশন তৈরী করেছেন। আমরা এই উদ্যোগকে স্বাগত জানাই এ জন্য যে, এই উদ্যোগটি যেন আরও সামনের দিকে আরো ভালো ভাবে প্রসারিত হয় সেই আশাবাদ ব্যক্ত করছি, পিছিয়ে পড়া ছাত্রছাত্রীরা যাতে লেখাপড়ায় আরও এগিয়ে যেতে পারে, ড. জহিরুল ইসলাম খান ইউরোপের বিভিন্ন দেশে চাকরি শেষে দেশে এসেছেন, দাউদকান্দি উপজোলার পিপিয়াকান্দি গ্রামের কৃতি সন্তান ড. জহিরুল ইসলাম খান দীর্ঘদিন ইউরোপ অস্ট্রেলিয়া থেকে লেখাপড়ার পাশাপাশি চাকরিও করেছেন । চাকরি শেষে অবসর গ্রহণের পর মানবসেবার দিকে এগিয়ে এসেছেন। বরকোটা স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো. জসিম উদ্দিন বলেন, মানব সেবায় এগিয়ে আসা, বাংলাদেশ এবং অস্ট্রেলিয়ায় গরীব এবং মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তির আওতায় আনা, এতিমদের আশ্রয়ের জন্য এতিমখানা নির্মাণ, ছিন্নমূল শিশুদের পুনর্বাসনের জন্য আশ্রয়স্থল তৈরীর উদ্যোগ নেওয়ায় বেগম জিলহজ রাজ্জাক মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ড. মো. জহিরুল ইসলাম আমার দৃষ্টিতে সত্যিই তিনি একজন সাদা মনের মানুষ।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © 2019 Suchana Community TV
themebazsuchana231231